টিপস

দাঁতের যত্নে করণীয়,যেভাবে দাঁতের সমস্যা দূর করবেন। দাঁতের ক্ষয় রোধ করার ঘরোয়া উপায়

দাঁত আমাদের অন্যতম একটি অঙ্গ। একটা মানুষের সৌন্দর্য অনেকটা নির্ভর করে তার দাঁতের উপর। তাই দাঁতের উপর যত্নশীল হওয়া অন্ততপক্ষে খুব জরুরি। সম্মানিত পাঠক আপনারা যারা দাঁতের বিভিন্ন সমস্যায় জর্জরিত এবং দাঁতের পোকা, ক্ষত, পুচপড়া সহ মুখের ভিতর হতে দূরগন্ধ বের হয় তারা মনোযোগ দিয়ে আজকের এই লেখাটি পড়ুন আশা করি দাঁত জনিত সবরকম সমস্যা দূর হবে। মুখের স্বাস্থ্য সার্বিক স্বাস্থ্যের ওপর শক্ত প্রভাব ফেলে। গবেষণা বলছে, মুখের মধ্যে যেকোনো রোগ (দাঁতে গর্ত, মাড়ি রোগ বা ক্ষত) পুষে রাখলে বা সঠিক সময়ে চিকিৎসা না করালে এটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গকে ঝুঁকিতে ফেলতে পারে। তাই কিছু বিষয় মেনে চললে দাঁতের এসব রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব।

দাঁতের যত্নে মুখ পরিষ্কার রাখবেন যেভাবে

দাঁত ভালো রাখতে সবার প্রথম আমাদের মুখের যত্নের প্রতি যত্নশীল হতে হবে। যদি মুখ অপরিষ্কার থাকে তাহলে দাঁতের পিছনে যতই টাকা খরচ করুন কোন উপকার হবে না। নিয়মিত ব্রাশ করতে হবে অবশ্যই শক্ত ব্রাশ নয় নরম ও ফ্লোরাইডযুক্ত টুথপেস্ট ব্যবহার করা সবচেয়ে উত্তম। শক্ত ব্রাশ দিয়ে দাঁত মাজা, কয়লা–ছাই ব্যবহার, দু–তিন মিনিটের অধিক সময় বা বারবার দাঁত ব্রাশ, চার মাসের অধিক সময় এক ব্রাশ ব্যবহার ও একজনের ব্যবহৃত ব্রাশ অন্যজন ব্যবহার করা থেকে বিরত থাকতে হবে।

যেসব খাবার খেতে হবে

সুষম আঁশযুক্ত খাবার বেশি খেতে হবে। আর হ্যা অবশ্যই ফরমালিনমুক্ত সবুজ শাকসবজি সহ সামুদ্রিক মাছ যত বেশি পারা যায় খেতে হবে। সঙ্গে চিনিমুক্ত চুইনগ্রাম, ছোটমাছ, টক দই, বিশুদ্ধ জল খাইতে হবে পর্যাপ্ত। ছোটবেলা থেকে চিনির প্রতি দুর্বলতা কমাতে শিশুদের উৎসাহিত করতে হবে। ধূমপান, জর্দা, গুল ও মদ স্বাস্থ্যের জন্য বিপজ্জনক। অতিরিক্ত টকজাতীয় খাবার, যেমন লেবু, তেঁতুল, ক্যান্ডি দাঁতের সংস্পর্শে যত কম রাখা যায়, ততই ভালো।

মাউথওয়াশ ব্যবহার

যাঁদের ডায়াবেটিস, হৃদ্‌রোগ, কিডনি রোগ, ক্যানসারের মতো ক্রনিক রোগ আছে, তাঁদের চিকিৎসকের পরামর্শে মাউথওয়াশ ব্যবহার করা জরুরি। ব্যস্ততায় মুখ পরিষ্কারে অবহেলা থাকলেও মাউথওয়াশ ব্যবহার করতে হবে। তবে দীর্ঘদিন মাউথওয়াশ ব্যবহারে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

ডাক্তারের পরামর্শ

আমরা অনেকে আছি দাঁত ব্যাথা সহ কোন সমস্যা হলে ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া বিভিন্ন রকম ঔষধ সবণ করি। এমনটা কখনো করা যাবে না। আপনার দাঁতের কি সমস্যা আগে নিশ্চিত হতে অবশ্যই কোন ভালো ডাক্তারের পরামর্ষ নিন এবং ডাক্তারের নির্দেশনা অনুযায়ী ঔষধ সবণ করুন ও নিয়ম মেনে চলুন। সমস্যা না হলেও বছরে অন্তত একবার অভিজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। মুখের অনেক রোগ শুরুতে বোঝা যায় না, নিয়মিত চেকআপে শনাক্ত হলে তার চিকিৎসা করা সহজ হয়। চিকিৎসক নির্বাচনে দায়িত্বশীল হতে হবে।

সর্বশেষ কথা,

দাঁত হচ্ছে আমাদের শরীরের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ । আমাদের শরীরের কোন অঙ্গ অসুস্থ হলে আমরা অসুস্থ হয়ে পড়ি । সুতরাং আমাদের প্রত্যেকটি  অঙ্গের ভালো ভাবে যত্ন নিতে হবে । আমরা যদি প্রত্যেক দিন নিয়মিত দুইবার ব্রাশ করি তাহলেই আমাদের দাঁতগুলো থাকবে । দাঁত ব্যথা মারাত্মক একটি যন্ত্রণাদায়ক  অসুখ । আশা করছি আমরা আপনারা আমাদের দেয়া নিয়ম গুলো ফলো করবেন । আর এই নিয়মগুলো ফলো করলে আপনারা এবং আপনাদের দাঁত ভালো থাকবে । আশা করছি আমাদের প্রতি থেকে আপনারা উপকৃত হতে পারবেন ।

jahid

আমি জাহিদ হাসান জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় রংপুর সরকারি কলেজ থেকে রসায়ন বিজ্ঞান থেকে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রি সম্পূণ করে ২০18 সাল থেকে সমাজের সেবামূলক কাজ করে যাচ্ছি । নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী।তাই আমি justnow247 ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি। যাতে করে মানুষের অনলাইনে সেবা করতে পারি । মানুষের দৈনিক চাহিদাগুলো পূরণ করতে পারি যেগুলো দেখার জন্য মানুষ অনলাইনে সার্চ করে থাকেন । আমার জন্য সবাই দোয়া করবেন আমি যেন ভালোভাবে কাজ করে সফল হতে পারি ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.