টিপস

জন্ডিস হলে করণীয়,যেভাবে জন্ডিস হতে মুক্ত থাকবেন।

সম্মানিত পাঠক আজকের এই লেখায় আজকে আমরা জানবো কিভাবে জন্ডিস হওয়া হতে নিজেকে বাঁচাবো এবং কিভাবে চললে আমাদের জন্ডিস হবে না। জেনে রাখা ভালো যে, জন্ডিস)(jaundice) আসলে কোন রোগ নয়। জন্ডিস হলো একটি রোগের লক্ষণ মাত্র। জন্ডিস হলে আমরা যেসব বিষয় লক্ষ্য করি আমাদের মাঝে তা হলো,রক্তে অধিক মাত্রায় বিলিরুবিনের মাত্রা বেড়ে যায় এবং ত্বক ও চোখের সাদা অংশ সহ মিউকাস ঝিল্লি হলুদ হয়ে যায়। এছাড়া কখনো কখনো শরীর অতিরিক্ত গরম হওয়া সহ প্রসাব হলুদ হয়ে যায়।

যেসব কারণে আমাদের শরীরে  জন্ডিস হয়

আসুন এবার জেনে কি কি কারণে জন্ডিস হয়। আপনারা হয়তো জানেন আমরা যা কিছু খাই সব লিভারে প্রক্রিয়াজাত হয়। মূলত বেশিভাগ সময় লিভারের রোগই জন্ডিস অন্যতম কারণ। জন্ডিস সবচেয়ে বেশি দেখা যখন রক্তে বিলিরুবিনের পরিমাণ বেশি বেড়ে যায়। তাহলে আসুন এবার জেনে কি কি কারণে আমাদের জন্ডিস হয়,

১. আমরা যারা অনেকে অতিরিক্ত মদপান করি তাদের জন্ডিস হওয়ার মূল কারণ মদপান করা।

২. আমরা বিভিন্ন রোগে ভুগলে নানারকম ঔসধ সবণ করি। এই কারণে অকারণে আমরা যে ঔষধ খাই তার পাশ্বপ্রতিক্রার ফলেও জন্ডিস হয়।

৩. টিউমার হলে বা পিত্তথলিতে পাথর হলেও জন্ডিস হয়ে থাকে।

৪. লিভার সহ অন্য কোথাও ক্যানসার হলেও জন্ডিস হওয়ার সুযোগ হয়। তাই সম্মানিত পাঠক জন্ডিস মানেই লিভারের সমস্যা এই ধারণা আসলে সম্পূর্ণ ভুল। আসুন এবার আমরা জেনে নিব জন্ডিসের লক্ষণ ও উপসর্গ সমূহ কি কি। জন্ডিসের প্রধান লক্ষণ হলো, প্রসাব ও চোখের রং হলুদ হয়ে যাওয়া।

জন্ডিসের লক্ষণ ও প্রতিকার

যেসব লক্ষণ দেখা দিলে জন্ডিস হয় সে লক্ষণগুলো আমরা আজকে আপনাদের সামনে তুলে ধরব । যাতে করে আপনারা আপনাদের শরিলে জন্ডিস হলে বুঝতে পারেন যে আপনাদের জন্ডিস হয়েছে । কারন অনেকেই আছেন যারা জন্ডিস শরীরে হওয়ার পরেও বুঝতে পারেনা । তাই তাদের কথা চিন্তা করেই আজকে আমরা আমাদের পোস্টটি করেছে । যদি আপনাদের শরীরের জন্ডিসের লক্ষণ দেখা দেয় তাহলে সাথে সাথে ডাক্তারের পরামর্শ নেবেন কারণ জন্ডিস থেকে অনেক ভয়াবহ রোগের সৃষ্টি হতে পারে ।

১. শারীরিক দূর্বলতা, শরীর ম্যাচম্যাচ করা।

২. ক্ষুধামন্দা অর্থাৎ কোন কিছু খাওয়াতে অরুচি।

৩. বমি হওয়া বা বমি বমি ভাব।

৪. তীব্র পেট ব্যাথা বা মৃদু ব্যাথা।

৫. অনেকসময় পায়খানা শক্ত হওয়া বা পায়খানার রং সাদা হয়ে যাওয়া।

৬. গায়ে চুলকানি, যকৃত শক্ত হওয়া।

৭. কাঁপুনি দিয়ে জ্বর আসা বা জ্বর জ্বর ভাব। সম্মানিত পাঠক এবার আমরা জানবো কিভাবে আমরা জন্ডিস প্রতিরোধ করবো।

জন্ডিস প্রতিরোধে করণীয়

জন্ডিস হলে এটি অবশ্যই আপনাকে প্রতিরোধ করতে হবে । আরেকটি প্রতিযোগ করতে গেলে অবশ্যই আপনাকে কিছু নিয়ম ফলো করতে হবে । আর এই নিয়মগুলো ফলো করলে আপনারা জন্ডিস থাকে মুক্তি পেতে পারেন । সুতরাং  ভিউয়ার্স আপনারা অবশ্যই আমরা যে নিয়মগুলো    আপনাদের সামনে তুলে ধরেছে সেই নিয়ম মাফিক চলার চেষ্টা করবেন । তাহলে জেনে নিন জন্ডিস রোগ প্রতিরোধ করার নিয়ম গুলি ।

১. নিরাপদ যৌন মিলন করুন। অনিরাপদ যৌনমিলন জন্ডিস এর কারণ।

২. বিশুদ্ধ জল পান করা। নোংরা জল পান হতে বিরত থাকা। প্রয়োজন হলে জল ফুটিয়ে খাওয়া যেতে পারে।

৩. রক্তস্বল্পতা বা কোন রোগে আক্রান্ত হলে যদি রক্ত নেওয়ার প্রয়োজন হয় তাহলে অবশ্যই প্রয়োজনীয় স্ক্রিনিং করে নিতে হবে।

৪. ডিসপোজেবল সিরিঞ্জ ব্যবহার করা।

৭. নেশাদ্রব ও মদখাওয়া হতে বিরত থাকা।

৮. সেলুনে বা বাড়িতে সেভ করার সময় অবশ্যই নতুন ব্লেড ব্যবহার করা।

jahid

আমি জাহিদ হাসান জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় রংপুর সরকারি কলেজ থেকে রসায়ন বিজ্ঞান থেকে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রি সম্পূণ করে ২০18 সাল থেকে সমাজের সেবামূলক কাজ করে যাচ্ছি । নতুনের প্রতি মানুষের আকর্ষণ চিরস্থায়ী।তাই আমি justnow247 ওয়েবসাইটে নিয়মিত লেখালেখি করি। যাতে করে মানুষের অনলাইনে সেবা করতে পারি । মানুষের দৈনিক চাহিদাগুলো পূরণ করতে পারি যেগুলো দেখার জন্য মানুষ অনলাইনে সার্চ করে থাকেন । আমার জন্য সবাই দোয়া করবেন আমি যেন ভালোভাবে কাজ করে সফল হতে পারি ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.